নব- নীলকন্ঠ

শান্তি হ’ল চম্পট, সুখ শহরে নাইকো।
রাতবিরেতে লম্পট, দিনে ঘোরে psycho।।

যস্মিন কালে যদা-কাস্টম
কানে হেডফোন, বেশে বোষ্টম।
হাট-বাজারে বিকিকিনি
সাগর-স্নানে গায়ে বিকিনি ॥

নেপোয় মারে দই!
দারওয়ান গেল কই?

রাখো তুমি কাছে তোমার হাইডিগার আর কাফকা,
শিশি থেকে দিও লেড়ো গেলাসে এক চাপকা॥

ভেঙে দিয়ে সুন্দর সাজানো এই দিল-টি
একদিন মনে হবে তোমার, তুমি গিল্টি॥

নীলকন্ঠ মল্লিক-এর অন্যান্য

আরো কাব্য

ফিনিশ হল জিনিস এমন প্যাকেটভরা ক্রাঞ্চি।
ভেবে না পাই এবার কি খাই অন্তরে তাই কাঞ্চি॥

পাইরাশি না পিরাসি?
যেমন একাশীর পর বিরাশী
যেমন কুম্ভের পর মীনরাশি
তেমন পিরাসি কনস্পিরাসি।

অস্কার নস্কর – ভাস্কর তস্কর।
Nascar-এ কার পুরস্কার?
তিরস্কার আর চির-স্কার!

একটি আধুনিক প্রবাদ
দানা নাই খাইবার
বসতে চাই ডাইপার।

বড়দিন
ইশকাপনের বিবি আর মাস্কর্পনের কেক।
সকাল-সকাল পিকনিক আর বিকেলবেলায় ঠেক॥

কাব্যি করে

ধর্মক্ষেত্রে কুরুক্ষেত্রে গদাধারী ভীম রে
মরণ-বাঁচন তুর্কিনাচন, গায়ে যে তার পিমরে।

মগজসৃষ্ট কল্পলোকে যা ভাবি আগামী
সম্ভাবনা ভাঁজ করে রোজ নিত্য ওরিগামি।

কপালভরা তিলক ভেবে কানে ধ্বনি ডঙ্কার
কপাল ফেটে টিকা বিনে হল ধনুষ্টংকার।

পাড়াগাঁয়ের চেনা নাড়ুগোপাল
আমরিকাতে হলেন এপিস্কোপল।

চালাও তুমি সারা বিশ্ব, তাই তোমায় প্রণমি
গ্রীসটা ডুবল, ইউরো ভোগে তুমি ইকনমি।